সৌরভ গাঙ্গুলি ভারতের ক্রিকেটের এক অন্যতম স্রষ্ঠার নাম। যার জীবনটাই সাজানো ক্রিকেটের রঙ দিয়ে। বলা হয়ে থাকে ভারতের আধুনিক ক্রিকেটের উথ্থান এই মানুষটির হাত ধরে। একটা সময় যখন ভারত সিনেমার খেলা ছাড়া অন্য কোন খেলায় জিততেই পারতো না ঠিক সেই রকম সংকটপূর্ন সময় তাকে দেয়া হয় ভারতের ক্রিকেটের দায়িত্ব।ভারত উঠে আসে তার হাত ধরেই সেই সংকট থেকে। আর ভারত পায় ক্রিকেটের অন্যতম সেরা অধিনায়ক। সৌরভের ক্যারিয়ারে রয়েছে অসংখ্য প্রাপ্তি। আর সেই প্রাপ্তির পালকে এবার জুড়লো সবথেকে বড় পালকটি। বিসিসিইর সভাপতি হলেন বাংলার ছেলে সৌরভ গাঙ্গুলি। এ দিকে আসন্ন বাংলাদেশ-ভারত একমাত্র টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে কোলকাতায়।সেই উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যকার শেষ টেস্ট ম্যাচ দেখার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ভারত ক্রিকেট বোর্ডের নতুন প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি।

পশ্চিম বাংলার আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, গাঙ্গুলির আমন্ত্রণ পত্রটি ইতোমধ্যেই প্রধানন্ত্রীর দফতরে পৌঁছেছে। নভেম্বরের ২২ তারিখ স্বাগতিকদের বিপক্ষে ম্যাচটিতে মুখোমুখি হবে সফরকারী বাংলাদেশ।

এরআগে, ২০১৭ সালেও ভারত সফরে গিয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু সেই সফরে মাত্র একটি টেস্ট ম্যাচ খেলে দেশে ফিরেছিল। এই প্রথম প্রতিবেশি দেশটির বিরুদ্ধে পূর্নাঙ্গ সিরিজ খেলতে যাচ্ছে সাকিব আল হাসান ও তার দল। আর এর শুরুটা হবে ৩ নভেম্বর টি টুয়েন্টি সিরিজ দিয়ে। তিন ম্যাচের টি টুয়েন্টি সিরিজ শেষ হবে ১০ নভেম্বর। এরপর মাঠে গড়াবে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ বা টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ।
প্রথম ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে ১৪ নভেম্বর ইন্দোরে। দ্বিতীয় ও শেষটির ভেন্যু কলকাতার ইডেন গার্ডেনস। সেখানেই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে অতিথি করতে চাইছেন গাঙ্গুলি।

শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণের বিষয়টি উল্লেখ করে আনন্দবাজার পত্রিকা আরও জানিয়েছে, ’আগামী ২২ নভেম্বর ইডেনে হবে সেই টেস্ট। যেখানে দুই বাংলার আবেগও জড়িয়ে থাকবে। নতুন বোর্ড প্রেসিডেন্ট উৎসবের আমেজে রাঙিয়ে তুলতে চান সেই স্মরণীয় মুহূর্ত। শেখ হাসিনার কাছে আমন্ত্রণ ইতিমধ্যেই চলে গিয়েছে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে আমন্ত্রণ গ্রহণ করে এখনও কোনও উত্তর না এলেও, মনে করা হচ্ছে যে কোনও মুহূর্তে চলে আসতে পারে। তবে ধরেই নেওয়া যায়, এমন এক ঐতিহাসিক টেস্টে থাকার বিষয়ে তিনি সম্মতিই দেবেন।’

এদিকে, ঐতিহাসিক এই ম্যাচটিতে দুই দেশের পক্ষ থেকে কে কে উপস্থিত থাকবেন তা নিয়েও পশ্চিম বাংলায় বিস্তর চর্চা শুরু হয়ে গেছে। আনন্দবাজার বলছে, ম্যাচটি উদ্বোধনের সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ও উপস্থিত থাকতে পারেন।


উল্লেখ্য, সৌরভ শুধু একজন খেলোয়াড়ই নন, একজন বিখ্যাত অধিনায়কও ছিলেন। তিনি তার ক্রিকেট জীবনে সর্বমোট ৩১১টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন এবং ১১,৩৬৩ রান সংগ্রহ করেছেন। পাশাপাশি তিনি ১১৩টি টেস্ট খেলেছেন ও ৭,২১২ রান সংগ্রহ করেছেন। ভারতকে তিনি ৪৯টি টেস্ট ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন যার মধ্যে ভারত জিতেছিল ২১টি ম্যাচে। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ভারতকে ১৪৬টি একদিনের আন্তজার্তিক ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন যার মধ্যে ভারত জিতেছিল ৭৬ টি ম্যাচে। তিনি ভারতের একজন মিডিয়াম পেসার বোলারও ছিলেন।